• শিরোনাম

    পুত্রবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টা

    | ১১ নভেম্বর ২০১৭ | ৮:০২ পূর্বাহ্ণ

    পুত্রবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টা

    পুত্রবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টা

    পুত্রবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টা : আ.লীগ নেতা ‘একঘরে’

    প্রতীকী ছবি

    রাজশাহীর দুর্গাপুরে পুত্রবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে আব্দুল মান্নান (৪৫) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে একঘরে করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার রাতুগ্রামে সালিশ বসিয়ে এ রায় দেন মাতবররা। একইসঙ্গে আব্দুল মান্নানের সঙ্গে যোগাযোগ রাখলে জরিমানারও ঘোষণা দেয়া হয়।

    অভিযুক্ত আব্দুল মান্নান ওই গ্রামের বাসিন্দা। তিনি উপজেলার কিসমতগণকৈড় ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন। পুত্রবধূর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ওই সালিশ বসানো হয়। তবে সালিশের খবর পেয়ে আগেই এলাকা ছাড়েন তিনি।

    ভুক্তভোগী ওই নারী শ্বাশুড়ি ও স্বামীর সঙ্গে থাকেন। আর প্রথম স্ত্রী নিয়ে একই গ্রামে আলাদা বসবাস করেন আব্দুল মান্নান। তবে মাঝে মধ্যে দ্বিতীয় স্ত্রীর কাছেও যান তিনি।

    webnewsdesign.com

    এনিয়ে কয়েক দফা যোগাযোগ করে ইউনিয়ন সদস্য ফজলুল হকের মুঠোফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি। তবে গ্রাম প্রধান মাতুব্বর মামুন সরকার সালিশের বিষয়টি স্বীকার করেন। তিনি জানান, অভিযুক্ত আব্দুল মান্নান সালিশে হাজির না হওয়ায় তাকে একঘরে করে রাখা হয়েছে। এছাড়া বিষয়টি নিষ্পত্তিতে কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে।

    এমন অভিযোগ তার কাছে আসেনি বলে জানিয়েছেন ওই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আফসার আলী মোল্লা। তিনি বলেন, সালিশ আয়োজনের বিষয়ে কেউ তাকে জানায়নি। এমন অভিযোগও আসেনি পরিষদে। সালিশ হয়ে থাকলে তা স্থানীয়ভাবে গ্রাম প্রধানরা করে থাকতে পারেন। ওই এলাকার প্রতিনিধি হিসেবে হয়তো পরিষদের সদস্য ফজলুল হকও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

    অভিযোগের বরাত দিয়ে গ্রাম প্রধানরা জানান, বুধবার রাতে ওই গৃহবধূর শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান তার সৎ শ্বশুর। এর আগে বিভিন্ন সময় তাকে নানান ভাবে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে আসছিলেন। প্রায় তিন মাস ধরে চলে আসছে তার এ অপকর্ম। কিন্তু লোকলজ্জায় বিষয়টি কাউকে জানাননি ওই গৃহবধূ। বুধবারের ওই ঘটনার পর তা তিনি স্বামীকে জানান। এরপর প্রতিকার চেয়ে লিখিত অভিযোগ দেন গ্রাম প্রধানদের কাছে।

    তবে মুঠোফোনে এ অভিযোগ অস্বীকার করেন আব্দুল মান্নান। তার দাবি, তিনি প্রতিহিংসার শিকার। তবে সালিশে বিচারের নামে নির্যাতনের ভয়ে এলাকা ছেড়েছেন তিনি।

    সালিশে অংশ নেয়া কয়েকজন নাম প্রকাশ না করে জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে রাতুগ্রাম মোড়ে বসে ওই সালিশ। তাতে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ফজলুল হক, গ্রাম প্রধান মামুন সরকার, সোবাহান খাঁ, আব্দুল কাদেরসহ বেশ কয়েকজন মাতবর। সেখানে ডেকে পাঠানো হয় অভিযুক্ত আব্দুল মান্নানকে। কিন্তু তিনি হাজির হননি। পরে পুত্রপবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে তার অনুপস্থিতিতেই রায় দেন মাতবররা।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ