• শিরোনাম

    হাজীগঞ্জ বহু প্রতিক্ষিত আমিন রোড সড়কের কাজ সম্পন্ন

    | ০৮ জানুয়ারি ২০১৮ | ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ

    হাজীগঞ্জ বহু প্রতিক্ষিত আমিন রোড সড়কের কাজ সম্পন্ন

    ব্যবসায়ীদের স্বার্থেই সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে, কয়েক দিনের মধ্যে উন্মক্ত করা হবে
    হাজীগঞ্জ বহু প্রতিক্ষিত আমিন রোড সড়কের কাজ সম্পন্ন
    নিজস্ব প্রতিবেদক॥
    হাজীগঞ্জ বাজারস্থ আমিন রোডে সড়কের কাজটি অবশেষে সমাপ্ত হয়েছে। গত এক মাস পূর্বে হাজীগঞ্জ পৌরসভার অর্থায়নে ড্রেন ও সড়কের কাজ উদ্বোধন করনে হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব উল আলম লিপন। যা গত ১০০ বছরের পুরাতন সড়কটি দীর্ঘ ৩০ বছর পর পুনরায় কাজ করা হয়েছিলো।
    হাজীগঞ্জ বাজারস্থ আমিন রোড সড়কের কাজটি গত একমাস পূর্বেও স্বংস্কার না হওয়ার কারনে জনসাধারণ ও যানবাহনের চলাচলের উপযোগী ছিলো না।

    এতে মানুষের মধ্যে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপর ক্ষোভ দেখা দিয়েছিলো। অবশেষে সেই ক্ষোভ ভাংলেন হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব উল আলম লিপন। গত একমাস পূর্বেও যে সড়কের উপর দিয়ে চালাচল করা যেতো না আর বর্তমানে এ সড়কটির কাজ সম্পন্ন হওয়ায় স্থানীয় ব্যবসায়ী ও জনগনের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসে।
    হাজীগঞ্জ পৌরসভার সুত্রে জানাযায়, হাজীগঞ্জ বাজারস্থ কুমিল্লা-চাঁদপুর রাস্তা হতে বায়তুল আমান জামে মসজিদ (ছোট সমজিদ) পর্যন্ত আমিন রোড সড়কের আরসিসি রাস্তা ও আরসিসি ড্রেন নির্মাণ কাজ প্রায় অর্ধকোটি টাকার টেন্ডার দেয় হাজীগঞ্জ পৌরসভা।

    টেন্ডার পক্রিয়ায় মাধ্যমে সড়কের কাজটি পায় জাহানারা ট্রেডার্স হাজীগঞ্জ। পরে গত একমাস পূর্বে প্রথমে কাজ শুরু হয় আরসিসি ড্রেনের। ড্রেনের কাজ শেষ করে সড়কের কাজ শুরু করে গত সাপ্তাহে কাজ শেষ করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। কাজ শেষে বর্তমানে ব্যবসায়ীদের স্বার্থে সড়কটি বন্ধ রাখা হয়েছে। আর আগামী কয়েক দিনের মধ্যে যানবাহনের জন্য উন্মক্তো করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র আ.স.ম মাহবুব উল আলম লিপন।
    স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, আমরা প্রথমে ড্রেনের কাজ দেখে বুঝতে পারিনি কেমন হবে এ সড়কের কাজ। ড্রেনের স্লাপ দেখে আমাদের অনেক ব্যবসায়ীদের মন ভেঙ্গে গিয়েছিলো, ভাবছিলাম হয় তো এ রোডে আর ব্যবসা করা যাবে না।

    webnewsdesign.com

    পরবর্তীতে সড়কের কাজ শেষ হওয়ার পর বর্তমানে দেখা যায় এটি মহাসড়কের মতো। ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সড়কের একটি অংশে কাজ না হওয়ার কারনে সড়কটির পরিপূর্নতা আসেনি। আমরা আশা করবো মেয়র বাকী কাজটি শেষ করে সড়কটির পরিপূর্নতা ফিরিয়ে আনবেন। আর এ আমিন রোডের সকল ব্যবসায়ীদের পক্ষে থেকে মেয়র আ.স.ম মাহবুব উল আলম লিপনকে ধন্যবাদ জানান মেসার্স রফিকুল ইসলাম এর স্বত্ত্বাধীকারী ব্যবসায়ী সাজ্জাদ হোসেন ফারুক।
    পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের জনগনের প্রধান সড়কটি হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে এ আমিন রোড সড়কটি।

    এ ওয়ার্ডের বাসিন্ধা মো. কাউছার আহমেদ জানান, বর্তমানে আমিন রোড দিয়ে বাড়ী যাওয়ার সময় মনে হচ্ছে আমরা মহাসড়কের উপর দিয়ে বাড়ি যাচ্ছি। এখন থেকে একমাস পূর্বেও বাড়ি ফিরতে আমাদের অনেক কস্ট হতো। এ সড়কের কাজটি সম্পন্ন করায় ৬নং ওয়ার্ড বাসীর পক্ষ থেকে মেয়রকে ধন্যবাদ জানাই।
    হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব উল আলম লিপন জানান, আমার নানা মরহুম আমিন মিয়ার নামের উপরেই এ সড়কটির নাম করণ করা হয়েছিলো। এ সড়কটি অত্যান্ত গুরুত্ব পূর্ব সড়ক। এ সড়ক দিয়ে খাদ্য গুদামের ট্রাক, ব্যবসায়ীদের রট ও সিমেন্টসহ ভারী যানবাহন চলাচল করে।

    যার কারনে সাধারণ মানুষের চলাচল করতে পারতো না। সড়কের কাজটি সম্পন্ন করতে পারায় নিজেকে স্বস্তি মনে করছি। কাজটি শেষ হয়েছে বটে কিন্তু এখনও ভারী যানবাহন চলাচলের উন্মোক্ত করা হয়নি। তবে জনসাধারণের জন্য উন্মোক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া ভারী যানবাহন চলাচলের জন্য আগামী কয়েক দিনের মধ্যে খুলে দেয়া হবে।

    তিনি আরো বলেন, গত একমাসে এ সড়কের কাজ কাজ করতে গিয়ে ব্যবসায়ীদের অনেক ক্ষতি হয়েছি কিন্তু ব্যবসায়ীদের ক্ষতি হওয়ার পর সড়কের কাজ সম্পন্নরুপে শেষ করতে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সে জন্য সকল ব্যবসায়ীকে ধন্যবাদ জানাই। এ ছাড়া যে টুকু কাজ বাকি রয়েছে তা স-মিল এর গাছের জন্য ঠিকাদার কাজ করতে পারেনি। স-মিলের মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আহসান হাবীব অরুনকে বলেছি গাছ গুলো সরিয়ে দিতে। কিন্তু তা না সরানোর কারনেই ঐ কাজ করা সম্ভব হয়নি। আর যখনই গাছ গুলো সরিয়ে দেয়া হবে সড়কের বাকী কাজটি সম্পন্ন করা হবে। সে জন্য সকল ব্যবসায়ীদের সহযোগীতা কামনা করছি।

     

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
    দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও যাচ্ছে মতলবের ক্ষীর
    দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও যাচ্ছে মতলবের ক্ষীর