• শিরোনাম

    হাজীগঞ্জের রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের তীব্র প্রতিবাদ

    নিজস্ব প্রতিনিধি | ১৫ জুলাই ২০২০ | ৯:৩২ অপরাহ্ণ

    হাজীগঞ্জের রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের তীব্র প্রতিবাদ

    গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ও কয়েকটি অনলাই পত্রিকায় শিরোনাম হাজীগঞ্জের রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি আনিসুর রহমান মজুমদারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ। বিষয়টি আমলে নিয়ে রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ও ৪নং কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আনিসুর রহমান মজুমদারের পক্ষে স্থানীয় এলাকাবাসী তীব্র নিন্ধা ও প্রতিবাদ জানান। হাজীগঞ্জ উপজেলাধীন ঐতিয্যবাহী রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের একক সভাপতি, স্বচ্ছ ইমেজের রাজনীতিবিদ, বিশিষ্ট সমাজ সেবক. গরীবের বন্ধু, দানবীর, শিক্ষানুরাগী, রামপুর সরকারী প্রাঃ বিদ্যালয়ের পর পর দুই বারের সাবেক সফল এবং উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক দুইবারের শ্রেষ্ঠ বিদ্যুৎসাহী সমাজ কর্মী সনদ প্রাপ্ত সভাপতি এবং ৪নং কালচোঁ (দ:) ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের স্বনামধন্য সাধারণ সম্পাদক, বিদ্যালয় উন্নয়নের রূপকার আনিসুর রহমান মজুমদারের বিরুদ্ধে গত ১৩ই জুলাই ফেসবুকে একটি কুচক্রী মহল অনুরাগ বা বিরাগের বশবর্তী হইয়া অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, কল্পনাপ্রসূত উদ্দেশ্য প্রনোদিত এবং হয়রানি করার জন্য যে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করেছে আমরা ৪নং কালচোঁ (দ:) ইউনিয়ন বাসী তাহার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।
    মিথ্যা সংবাদ প্রচারের অন্তরালে সত্য ঘটনা হচ্ছে আনিসুর রহমান মজুমদার বিদ্যালয়ের সভাপতি হওয়ার পর থেকে অদ্যাবধি পর্যন্ত সকল কাযক্রম সদস্যদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে বিধি ও রেজ্যুলেশন করে পরিচালনা করে আসছেন। গাছ বিক্রির রেজ্যুলেশন এবং যথাযথ নিয়ম অবলম্বন করে ট্রেন্ডার প্রক্রিয়া সমাপ্ত করে গাছ বিক্রি করেছেন। টিনের ঘর বিক্রিসহ বিদ্যালয়ের যে কোন খাত থেকে প্রাপ্ত অর্থ রুপালী ও মেঘনা ব্যাংক লিমিটেড রামপুর বাজার শাখায় প্রতিষ্ঠানের নামে পরিচালিত হিসাব নাম্বারে জমা প্রদান করা হয়েছে।
    পরিশেষে বলতে চাই সত্যকে মিথ্যায় পরিণত করা যায়না। সত্য চিরকালই সত্য। সত্যের জয় হবেই হবে। কেননা মিথ্যা তুমি দশটি পিপড়াঁ। সত্যের আলোকে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা হবে। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের সকল অভিভাবক ও ইউনিয়ন বাসীকে সজাগ থাকতে এবং ফেসবুক এর মিথ্যা সংবাদে বিব্রত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হইল। সেই সাথে সংবাদকর্মীদের ভুল তথ্য দিয়ে কাল্পনিক ভিত্তিহীন সংবাদ তৈরি করায় উক্ত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।
    এ সংক্রান্ত বিষয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতি ও ৪নং কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আনিসুর রহমান মজুমদার বলেন, আমি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির পদে এসেছি মাত্র, করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পন্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি একজন সফল ব্যবসায়ী হিসাবে দান অনুদান অব্যাহত রেখেছি, এসব অনিয়ম করে অর্থ আত্মসাৎ করার চিন্তা চেতনা আমার নেই। প্রয়োজনে অনিয়মের কোন সত্যতা প্রমান করতে পারলে আমি আর কোনদিন এলাকাবাসীকে মূখ দেখাবো না। এছাড়া আমার রাজনীতি নিয়ে যারা কথা বলেন, তারা হয়তো অনেকেই জানেন না, আমার বাবা আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিত প্রান ছিলেন। আমাদের পরিবার স্বাধীনতা পক্ষের নৌকার কান্ডারী। ১৯৯৬ সালে বর্তমান সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি আমাদের ঘরে গিয়েছিলেন। আমি তখন থেকে ছাত্র রাজনীতি থেকে সকল জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করে আসছি। যে কারনে গত আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্লেলনে নেতাকর্মীরা সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করেছেন। সর্বশেষ একটি কথাই বলতে চাই, যারা আমার কারনে অনিয়ম করার সুযোগ পায়না, তারাই আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে আজ ফেইসবুক ও অনলাইন সংবাদে ভিত্তিহীন তথ্য রটাচ্ছে। আমি উক্ত মিথ্যা বানোয়াট খবরের তীব্র নিন্দ্রা ও প্রতিবাদ জানাই।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি
    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি