• শিরোনাম

    ‘সেদিনের জন্য কষ্ট করতে হবে আরও কিছুটা’

    | ২৫ অক্টোবর ২০১৭ | ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

    ‘সেদিনের জন্য কষ্ট করতে হবে আরও কিছুটা’

    ‘সেদিনের জন্য কষ্ট করতে হবে আরও কিছুটা’

    বিনোদন রিপোর্ট
    তাসনুভা তিশা (ছবি: সংগৃহীত)ছোট পর্দায় এখন দর্শকচাহিদায় এ প্রজন্মের তারকাদের মধ্যে তাসনুভা তিশা আছেন সামনের সারিতে। বিভিন্ন পণ্যের কাগুজে মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন শুরুতে। কাজ করেছেন নাটক, বিজ্ঞাপনচিত্র আর মিউজিক ভিডিওতে। গেলো ঈদে একটি ধারাবাহিক ও ছয়টি নাটক-টেলিছবিতে দেখা গেছে তাকে। মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) থেকে মাছরাঙা টেলিভিশনে শুরু হচ্ছে তার নতুন ধারাবাহিক নাটক। বর্তমান সময়ে নিজের কাজ নিয়ে আজকের দেশকন্ঠের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি।

    আজকের দেশকন্ঠ: ‘প্রেমনগর’ নাটকে আপনার চরিত্রটি কেমন?
    তাসনুভা তিশা: মেয়েটার নাম চামেলি। খুব চঞ্চল সে। সারাদিন দৌড়ঝাঁপ করে বেড়ায়। চামেলি অনেকটা আমার মতোই!

    আজকের দেশকন্ঠ: নাটকের নাম ‘প্রেমনগর’ কেন?
    তাসনুভা তিশা: গ্রামের নাম প্রেমনগর। নাম কিংবা গ্রামবাসীর আচরণের কারণে হোক, পার্শ্ববর্তী গ্রামে প্রেমনগরের অনেক বদনাম। এ গ্রামে কেউ ছেলে বিয়ে দিতে চায় না। ছেলের বউও করতে চায় না এখানকার মেয়েদের। সবার ধারণা— প্রেমনগরের ছেলেমেয়েরা শুধু প্রেম করে বেড়ায়! গ্রামের এই বদনাম দূর করতে মুরব্বিরা প্রভাবশালী জলিল মেম্বারের কাছে যান। তারা গ্রামে প্রেম নিষিদ্ধ করার দাবি জানান। নিজের ছেলেও যখন দরিদ্র চা-বিক্রেতার মেয়ের প্রেমে পড়ে, তখন জলিল মেম্বার গ্রামে প্রেম নিষিদ্ধ করেন।

    তাসনুভা তিশা (ছবি: সংগৃহীত)বাংলা ট্রিবিউন: ঈদের নাটকে কেমন সাড়া পেলেন?
    তাসনুভা তিশা: অভিনয় করছি কয়েক বছর ধরে। তবে এবারের ঈদের কাজগুলোর সুবাদে সবচেয়ে বেশি সাড়া পেয়েছি । সব কাজই দর্শকরা মোটামুটি দেখেছে। এ তালিকায় আছে নাজনীন হাসান চুমকীর ধারাবাহিক নাটক ‘জার্নি বাই লঞ্চ’ (মিশু সাব্বির), চয়নিকা চৌধুরীর ‘পথের শেষে’ (তৌকীর আহমেদ), মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘চেয়েছি তোমায়’ (অপূর্ব), এআর মননের ‘অ্যান আমব্রেলা’, রেজাউল রিজুর ‘জলতরঙ্গ’ (শ্যামল মওলা), শহিদ উন নবীর ‘খান সাহেবের চিকুনগুনিয়া’ (তামিম মৃধা) ও খায়রুল পাপনের ‘সুপারম্যানের লুঙ্গি’ (নিলয়)।

    webnewsdesign.com

    আজকের দেশকন্ঠ: এর মধ্যে কোন কাজটা নিয়ে বেশি সাড়া এসেছে?

    তাসনুভা তিশা: মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘চেয়েছি তোমায়’ নাটকের জন্য বেশি প্রশংসা পেয়েছি। আমার সহশিল্পী অপূর্ব। মজার বিষয় হলো, এবারের ঈদের সবচেয়ে আলোচিত নাটক ‘বড় ছেলে’র পরিচালক ও অভিনেতা তারাই।

    আজকের দেশকন্ঠ: এখন পর্যন্ত নিজের অবস্থা নিয়ে কি আপনি সন্তুষ্ট? মাঝে মধ্যে কি মনে হয় না, ওই অভিনেত্রীর মতো যদি আরও এগিয়ে থাকতাম!

    তাসনুভা তিশা: আসলে মানুষের চাওয়ার তো শেষ নাই। কিন্তু আমার বরাবরই একটাই চাওয়া ছিল— দর্শকদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা। সেদিনের জন্য তো আরও কিছুটা কষ্ট করতে হবে বেশকিছু ভালো কাজ করে।

    আজকের দেশকন্ঠ: কোন ধরনের চরিত্রে কাজ করার স্বপ্ন দেখেন?

    তাসনুভা তিশা: মানসিক বিকারগ্রস্ত অথবা মাদকাসক্ত তরুণীর চরিত্র। আমার কেন যেন মনে হয়, এটা চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার হবে।

    আজকের দেশকন্ঠ: সংসার-সন্তান সামলে অভিনয়ও তো চ্যালেঞ্জিং…

    তাসনুভা তিশা: তা তো কিছুটা বটেই। তবে এটাতে মানিয়ে নিয়েছি। আমার ছেলে আনুশের বাবা ফারজানের অনেক উৎসাহ আর সমর্থন পাই। সেজন্যই ভালোভাবে অভিনয়টা করতে পারি।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    সানি লিওন

    ১১ আগস্ট ২০১৮

    খোলামেলা পোশাকে প্রিয়াঙ্কা

    ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
    সানি লিওন
    সানি লিওন