• শিরোনাম

    শামীম ওসমানের নির্দেশে মেয়র আইভীর উপর হামলা

    | ১৬ জানুয়ারি ২০১৮ | ৩:২৯ অপরাহ্ণ

    শামীম ওসমানের নির্দেশে মেয়র আইভীর উপর হামলা

    শামীম ওসমানের নির্দেশে মেয়র আইভীর উপর হামলা

    নিজস্ব প্রতিবেদক

     নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমানের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিয়ে যে আশঙ্কা করা হচ্ছিল তাই সত্য হয়েছে। প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়াসহ দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ দুই শতাধিক শর্ট গানের ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে।

    webnewsdesign.com

    মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) বিকেলে নগরীর চাষাঢ়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় মেয়র আইভী, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজসহ শতাধিক মানুষ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

    এমপি শামীম ওসমান নগরীর ফুটপাতে মঙ্গলবার বিকেল থেকে উচ্ছেদ করা হকারদের বসানোর ঘোষণা দেয়ার প্রতিবাদে নগর ভবন থেকে পায়ে হেঁটে মেয়র আইভী তার নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিলসহ চাষাঢ়ায় আসেন। মুক্তি জেনারেল হাসপাতালে সামনে এলে প্রতিপক্ষ তাদেরকে লক্ষ্য ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। নেতাকর্মীরা আইভীকে মানব ঢাল তৈরী করে রক্ষা করে।

    এরপর থেকে চলতে থাকে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা। বিকেল সাড়ে চারটা থেকে বিকাল পাচটা পর্যন্ত সংঘর্ষ চলে। পুলিশের সঙ্গে শামীম ওসমান সমর্থক ও হকারদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশ দুই শতাধিক রাউন্ড শর্ট গানের ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে। নগরীর চাষাঢ়া থেকে দুই নং রেল গেইট পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে হকারদের সমর্থনে সংসদ সদস্য শামীম ওসমান রাজপথে নেমে এসে হকারদের পক্ষ নিয়ে বঙ্গবন্ধু সড়কে অবস্থান করেন। আহত আইভী প্রাথমিক চিকিৎসার পর নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে অবস্থান নেন।মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর সাধুপৌলের গির্জার কাছে হকারদের হামলায় আহত হওয়ার পর নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে গিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন আইভি।এসময় তিনি বলেন, শামীম ওসমান আমার উপর হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। নির্দেশ পেয়ে তার লোকজন ইট-পাটকেল ছোড়ে। এতে আমি আহত হই।

    তিনি বলেন, এটা নিরস্ত্র লোকের সশস্ত্র হামলা। মৃত্যুকে আমি ভয় পাই না। শান্তিপূর্ণভাবে হেঁটে আসছিলাম। চাষাঢ়ার রাইফেলস ক্লাবে বসে শামীম ওসমান আমার ওপর হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। নির্দেশ পেয়ে তার লোকজন আমাদের ওপর হামলা চালায়।

    মেয়র আইভী বলেন, ঘটনাস্থল চাষাঢ়ায় পুলিশ থাকলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নেননি। শামীম ওসমানের প্রতি সহানুভূতিশীল ছিল পুলিশ।পুলিশের নীরব ভূমিকার ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা পুলিশ সুপার মইনুল হক বলেন, আমরা উভয় পক্ষকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছি।

     

    জানমালের নিরাপত্তা দিতে চেষ্টা করেছি। আমাদের কোনো গাফিলতি ছিল না।

    এসময় আইভি অবিলম্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের পদত্যাগ দাবি করেন।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
    হাজীগঞ্জে ছোট বোনের হাতে বড় বোন খুন
    হাজীগঞ্জে ছোট বোনের হাতে বড় বোন খুন