• শিরোনাম

    ভুয়া ডিগ্রিধারী ডাক্তার দম্পতির প্রতারণা!

    | ২২ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১:১৩ অপরাহ্ণ

    ভুয়া ডিগ্রিধারী ডাক্তার দম্পতির প্রতারণা!

    ভুয়া ডিগ্রিধারী ডাক্তার দম্পতির প্রতারণা!

    সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী) প্রতিনিধি

    নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে জাহানারা হসপিটালে ডিগ্রিধারী ডাক্তার পরিচয়ে স্বামী-স্ত্রীর প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। ঐ হসপিটালের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও পরিচালক সালমা আক্তার দীর্ঘদিন ধরে এফসিপিএস পাশ নয়, তবুও নিজস্ব প্যাডে, চটকদার ভিজিটিং কার্ডে ও বিভিন্ন প্রচারপত্রের লিফলেটে এফসিপিএস পাশ লিখে রোগীদের সাথে প্রতারণা করে আসছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও কয়েকজন ভুক্তভোগী রোগী জানান, দীর্ঘ ২০১৪ সালে উপজেলার পৌর এলাকার জোড় পোল সংলগ্ন একটি ১তলা বিশিষ্ট ভবন ভাড়া নিয়ে জাহাঙ্গীর আলম ও তার স্ত্রী সালমা আক্তার হসপিটালটি দেয়। এই হসপিটালের নাম দেয়া হয় জাহানারা হসপিটাল। হসপিটালের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বিভিন্ন প্রচারপত্রে ও প্যাডে এফসিপিএস (জেনারেল সার্জারী) কোর্স সমাপ্ত ও তার স্ত্রী হসপিটালের পরিচালক সালমা আক্তার এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস) লিখে নিজেদেরকে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয় দেয়। প্রকৃতপক্ষে তারা উভয়ে এ ধরণের ডিগ্রি পাশ করেননি বলে জানা যায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলার কৌশল্যারবাগ গ্রামের এক ব্যবসায়ী অভিযোগ করে জানান, তার স্ত্রীর প্রসবের ব্যথা উঠলে জাহানারা হসপিটালে নিলে সালমা আক্তার নিজেকে এফসিপিএস (গাইনী এন্ড অবস) বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয় দিয়ে সিজার করান। সিজার অপারেশন করানোর সময় ওই ডাক্তার তার নবজাতক শিশুর বাম হাত ভেঙে ফেলে। পরে বিষয়টি নিয়ে সে প্রতিবাদ করলে স্থানীয়ভাবে মীমাংসা হয়। উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের কালু মিয়ার পুত্র সেলিম তার স্ত্রীর প্রসবের ব্যথা উঠলে এ হাসপাতালে আনলে সালমা ডিগ্রিধারী ডাক্তার পরিচয় দিয়ে সিজার অপারেশন করান। পরে তার হাসপাতালের ফি ধরা হয় ৩০ হাজার টাকা। অতিরিক্ত ফি নেয়ায় সেলিম প্রতিবাদ করলে হাসপাতালের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম নিজেকে এফসিপিএস ডাক্তার পরিচয় দিয়ে বলেন, এ উপজেলায় তার মত ডিগ্রিধারী একজন ডাক্তারও নেই। তারা স্বামী-স্ত্রী দুজনই এফসিপিএস পাশ ডাক্তার। তাদের ফি বেশী। সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মাইনুল ইসলাম জানান, এফসিপিএস পাশ না হলে লিখা যাবেনা। তবুও লিখলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সোনাইমুড়ী উপজেলা বেসরকারি হসপিটাল মালিক সমিতির একজন সদস্য জানান, জাহানারা হসপিটালের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও পরিচালক সালমা আক্তার দীর্ঘদিন ধরে এফসিপিএস পাশ পরিচয় দিয়ে রোগীর চিকিৎসা করছে। বিভিন্ন প্রচারপত্রে, লিফলেট ও প্যাডে নিজেদেরকে এফসিপিএস পাশ পরিচয় দিয়ে রোগী সংগ্রহ করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। বক্তব্য নিতে জাহানারা হসপিটালের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের মুঠোফোনে কল দিলে তিনি বলেন, বিভিন্ন প্রচারপত্রে ও ক্যালেন্ডারে ভুলবশতঃ এফসিপিএস পাশ লেখা হয়েছে। বিষয়টি তিনি দেখেন নি। এখন মুছে ফেলবেন।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ