• শিরোনাম

    চাপ বাড়লেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হবে সু চি : হাছান মাহমুদ

    | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৬:৪৪ অপরাহ্ণ

    চাপ বাড়লেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হবে সু চি : হাছান মাহমুদ

    অনলাইন ডেস্ক ॥ আওয়ামী লীগের মুখপাত্র ও প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, রোহিঙ্গা শরণার্থী সংকট সমাধানে আপাতদৃষ্টিতে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি’র কোন সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না মনে হলেও তা ঠিক না। আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টির প্রেক্ষিতে সু চি জাতির উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কথা বলতে বাধ্য হয়েছেন। বেশ কিছু মিডিয়ার সাক্ষাৎকারেও তিনি বলেছেন, যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু করতে চায় সু চি। তাই আমার মনে হয়, চাপ আরও বাড়লেই সু চি রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হবে।

    জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৫ টি শর্ত সহ রোহিঙ্গা সংকট সমাধান বিষয়ে বিবিসি বাংলার এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন।

    আওয়ামী লীগের তরফ থেকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে যেসব কূটনৈতিক উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে তা যথেষ্ট নয় বলে সমালোচনা চলছে। তাহলে কেন আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে না?

    webnewsdesign.com

    প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগের কারণে আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায় এগিয়ে এসেছে। এই অভিযোগগুলো মূলত বিএনপির দিক থেকে এসেছে। তারা রোহিঙ্গা সমস্যায় ঘটনার শুরুতে এগিয়ে যায়নি। সমস্যা তৈরির ২২ দিন পরে সেখানে গিয়েছে। অথচ আমাদের দলের টিম সেখানে বহু আগেই দলের সাধারণ সম্পাদক, দলের ত্রাণ বিষয়ক সম্পদক, সাংগঠনিক সম্পাদকের নেতৃত্বে সেখানে গিয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও সেখানে গিয়েছেন।

    তিনি বলেন, এছাড়া রোহিঙ্গা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী, তুরস্কের প্রধান এরদোগানের স্ত্রীও বাংলাদেশে এসেছিলেন। তারা এমনি এমনি আসেনি। ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই বলেছেন, তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে তিনি বাংলাদেশে ছুটে এসেছেন। সুতরাং বাংলাদেশের উদ্যোগের প্রেক্ষিতেই আর্ন্তজাতিক চাপ সৃষ্টি হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে শুরু করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ব্রিটেন এবং জাতিসংঘের মহাসচিব যেভাবে মিয়ানমারের প্রতি সহিংসতা বন্ধে আহ্বান জানিয়েছেন সেগুলো বাংলাদেশের কুটনৈতিক তৎপরতার কারনেই হয়েছে।

    রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বাংলাদেশের সামাজিক-রাজনৈতিক নিরাপত্তার জন্য হুমকি বলে অনেকে মনে করছেন। আবার রোহিঙ্গা নিয়ে রাজনৈতিক না করার জন্য বিভিন্ন দল থেকেই আহ্বান এসেছে। কিন্তু বিরোধী দলকে ত্রাণ তৎপরতায় বাধা দেয়া হলো না কেন?
    তিনি বলেন, তাদের ত্রাণ দিতে দেয়া হয়নি- এটি সঠিক নয়। বিরোধী দল এটি নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। আসলে বিএনপি এবং বিএনপির সাথে থাকা জোটের দলগুলোর নিজস্ব কোন রাজনীতি নেই। সাম্প্রদিক সময়ে তারা যেসব ইস্যু নিয়ে কথা বলে সেগুলো তাদের ইস্যু নয়। যেমন ফরহাদ মজহারের একটি বিষয় নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। এরপরে তারা রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। ত্রাণ তৎপরতা চালাতে হলে সাধারণ কিছু নিয়ম-কানুন মানতে হয়। সে নিয়ম-নীতি না মেনে তারা সেখানে চলে গিয়েছিলো সংবাদ সৃষ্টি করার জন্য। পরবর্তীতে তারা ত্রাণ তৎপরতা চালিয়েছে। সুতরাং তাদের ত্রাণ তৎপরতা চালতে বাধা দেয়া হয়েছে তা সঠিক নয়।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
    যুবলীগে স্থান পাবে ত্যাগী নেতারা – কেন্দ্রীয় সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল
    যুবলীগে স্থান পাবে ত্যাগী নেতারা – কেন্দ্রীয় সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল