• শিরোনাম

    খালেদা জিয়ার চোখে ছানি পড়েছে তাই তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়ন চোখে দেখেনা — নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খাঁন

    | ০৮ নভেম্বর ২০১৭ | ৩:১২ অপরাহ্ণ

    খালেদা জিয়ার চোখে ছানি পড়েছে তাই তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়ন চোখে দেখেনা — নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খাঁন

    অভ্যন্তরীন নৌ-পথের ৫৩টি রুটে ক্যাপিটাল ড্রেজিং ১ম পর্যায় ২টি নৌ-পথ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় হাজীগঞ্জ-ইচুলী-চাঁদপুর নৌ-পথ খনন কাজের উদ্বোধন
    খালেদা জিয়ার চোখে ছানি পড়েছে তাই তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়ন চোখে দেখেনা
    —— নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খাঁন
    নৌ-পথকে উজ্জেবিত করার জন্য অতীতে অন্য কোনো সরকার উদ্যোগ গ্রহন করেনি
    ———-মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি
    হুমায়ুন কবির॥


    অভ্যন্তরীন নৌ-পথের ৫৩টি রুটে ক্যাপিটাল ড্রেজিং ১ম পর্যায় ২টি নৌ-পথ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় হাজীগঞ্জ-ইচুলী-চাঁদপুর নৌ-পথ খনন কাজের উদ্বোধন করছেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খাঁন এমপি। গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় হাজীগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ মাঠ সংলগ্ন ডাকাতিয়া নদীর পাড়ে এ খনন কাজের উদ্বোধন করেন। পরে ডিগ্রী কলেজ মাঠে আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, খুনিদের নিয়ে জোটকরে আবারও দেশকে অরাজকতার দিকে ঠেলে দিতে চাইছে বেগম খালেদা জিয়া। তিনি অরো বলেন, বর্তমান সরকারকে উৎখাত করতে খালেদা জিয়া স্বাধীনতা বিরোধী খুনিদের নিয়ে আবার সংলাপ সংলাপ করে চিৎকার করছে, পাশা পাশি গনতন্ত্র গনতন্ত্র করছে। খুনিদের জন্য গনতন্ত্র নয়, জনগনের জন্য গনতন্ত্র। এ গনতন্ত্রের কথা বলে দেশে অরাজকতা করে পূর্বে শত শত মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে, মসজিদে আগুন দিয়ে কোরআন শরিফ পুড়িয়েছে। বাংলাদেশের মানুষ আর খুনি খালেদা জিয়া ও তার চক্রকে আর ক্ষমতায় আসতে দিবে না। বেগম জিয়ার চোখে ছানি পড়েছে, কারন তিনি দেশ যখন উন্নয়ন চোখে দেখেনা। তাই দেশকে আরো উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিতে পূনরায় আবারও শেখ হাসিনার সরকারকে ক্ষমতায় আনতে হবে। নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হবে।


    তিনি আরো বলেন, সারা দেশে ৭০০ নদী রয়েছে, যার মধ্যে নদী পথ রয়েছে প্রায় ২৪ হাজার কিলোমিটার। কিন্তু বর্তমানে মাত্র ৬ হাজার কিলোমিটার নদী পথ আছে। এ নদী পথ গুলোকে সচল করতে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সাল থেকে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৩ বছর ৭ মাসে ৭টি ড্রেজার ক্রয় করেন। তার পর থেকে আর কোনো সরকার ড্রেজার ক্রয় করেনি। বর্তমানে সারা দেশে নদী পথ গুলো ড্রেজিং করতে প্রায় ২০০ টি ড্রেজার দরকার। বঙ্গবন্ধুর পরে ২য় সরকার হলো শেখ হাসিনার সরকার। কিন্তু বর্তমান সরকার ২০১৪ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত প্রায় ১৪টি ড্রেজার নির্মান করেছে, আরো ২০টি ড্রেজারের নির্মান কাজ চলছে। স্বাধীনতার পরে এদেশে প্রায় ৪০ ভাগ মানুষ দারিদ্রতার মধ্যে ছিলো বর্তমানে তা কমিয়ে ২০ ভাগ মানুষ দারিদ্রতার মধ্যে রয়েছে।
    শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আশার আগে ৩০ লক্ষ মে.টন খাদ্য ঘাটতি ছিলো, কিন্তু বর্তমানে খাদ্য ঘাটতি তো নেই বরং ২১ লক্ষ মে.টন খাদ্য মজুদ রয়েছে। এখন আর খাদ্য আমদানী করতে হয় না। বর্তমানে এ দেশ খাদ্য রপতানী করছে। তার পাশা পাশি এখন আর কোনো বিদ্যুতের ঘাটতি নেই। বর্তমানে আমরা প্রায় ১৫ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। সমৃদ্ধি হয়েছে বাংলাদেশ। সারা দেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। আর এ উন্নয়নের একমাত্র কৃতিত্ব শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুকে খুন করে যারা ক্ষমতায় এসেছে এখন তারা পূনরায় ক্ষমতায় আসার জন্য সকল খুনিরা একত্রিত হয়েছে। কিন্তু এদেশের মানুষ কখনও তা বাস্তবায়ন হতে দিবে না। এ দেশের মানুষ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকাকে আবারও ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে ক্ষমাতায় আনবে-ইনশাআল্লাহ।

    webnewsdesign.com


    বিশেষ অতিথির বক্তব্যে হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তির নির্বাচনীয় এলাকার সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি বলেন, নৌ পথকে উজ্জেবিত করার জন্য অতিতে অন্য কোনো সরকার উদ্যোগ গ্রহন করেনি। তিনি তার বক্তব্যে আরো বলেন, বাংলাদেশের নদী গুলোতে যে পরিমান নাব্যতা দরকার, তা আর দেখা যাচ্ছে না পলিথিনসহ বিভিন্ন বর্জের কারনে। আর এ বর্জ বা পলিথিন না অপশারন না করলে নদীর নাব্যতা ফিরে আসবে না। হাজীগঞ্জ শাহরাস্তির মানুষ যেনো বিনা বাধায় নদী পথে চলাচল করতে পারে সেজন্য ও নদী পথে আরো খনন কাজ ও নদী পথকে উন্নত করা হবে। চাঁদপুর থেকে শুরু হয়ে এ ডাকাতিয়া নদীর বহু স্থানে বেদখল হয়ে আছে, সে গুলোও দখল মুক্ত করা হবে। এ ছাড়াও এ ড্রেজিং কাজটি জেন সঠিক ভাবে করা হয় সে জন্য একটি মনিটরিং সেন্টার গঠন করা হবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়ন দেখে বিএনপি জামায়াতের গায়ে আগুন ধরেছে। তারা বর্তমান সরকারের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে কাজ করে যাচ্ছে। তাই এ দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন করতে আবারও বর্তমান সরকার শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে।


    উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ অভভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল (যাত্রী পরিবহণ) সংস্থার চেয়ারম্যান ও মুজিবনগর সরকারকে গার্ড অব প্রদানকারী পুলিশ সুপার মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম (এসপি মাহবুব), চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুস সবুর মন্ডল, পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার পিপিএম ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।
    উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মো. মাইনুদ্দিন এর সঞ্চালনায় সুধি সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ, হাজীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার, পৌর মেয়র আসম মাহবুব-উল আলম লিপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ূয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ¦ হেলাল উদ্দিন মিয়াজী, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আহম্মেদ খসরু, হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আহসান হাবিব অরুন, সাধারণ সম্পাদক হায়দার পারভেজ সুজন, হাজীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মুন্সী মোহাম্মদ মনিরসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সর্বস্তরের জনসাধারণ।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
    দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও যাচ্ছে মতলবের ক্ষীর
    দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও যাচ্ছে মতলবের ক্ষীর