• শিরোনাম

    ই-পেমেন্ট লেনদেন ॥ জবাবদিহিতা ও সরকারের রাজস্ব আদায় বাড়বে

    | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৭:৩৮ অপরাহ্ণ

    ই-পেমেন্ট লেনদেন ॥ জবাবদিহিতা ও সরকারের রাজস্ব আদায় বাড়বে

    দেশের অর্থনীতির পরিসর বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে ব্যক্তিগত ও প্রাতিষ্ঠানিক নগদ লেনদেনের পরিমাণ। আবার স্পষ্ট যে, দেশে নগদ লেনদেনের আধিক্য বেশি। স্বাভাবিক কারণেই লেনদেনকৃত অর্থ কী লক্ষ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে, তা অনেক ক্ষেত্রেই সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জানা সম্ভব হয় না। উপরন্তু প্রায়ই বিভিন্ন অপরাধে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি এবং অর্থ চিহ্নিতকরণের ক্ষেত্রে নানাবিধ সমস্যায় পড়তে হয়। আলোকিত বাংলাদেশে প্রকাশ, এসব বিবেচনায় এবার নগদ লেনদেন কমানো বা নিরুৎসাহিত করার লক্ষ্যে নীতিমালা করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এতে গুরুত্ব পাচ্ছে অনলাইনভিত্তিক লেনদেন ব্যবস্থা বা ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেমের ব্যবহার। অর্থাৎ নিত্যপণ্যের কেনাকাটা থেকে শুরু করে রেস্টুরেন্টের বিল কিংবা জমি বেচাকেনা প্রতিটি পর্যায়ে অ্যাকাউন্টপেয়ি চেক, অ্যাকাউন্টে অর্থ স্থানান্তর ও কার্ডভিত্তিক লেনদেন বাড়ানোর পদক্ষেপ নেয়া হবে, যাতে প্রত্যেকটি লেনদেনের রেকর্ড সংরক্ষিত থাকে। লেনদেনের স্বচ্ছতা নিশ্চিতে এটা অবশ্যই প্রশংসনীয় উদ্যোগ।
    সূত্র মতে, নগদ অর্থ বহনসহ যে কোনো ঝুঁঁকি এড়ানো ও দুর্নীতি রোধে এ ধরনের নীতিমালা করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে খসড়া প্রতিবেদন প্রস্তুতে সরকারের চার সদস্যের মনিটরিং কমিটি কাজ করছে। এ নীতিমালা তৈরির সাচিবিক দায়িত্ব পালন করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বাংলাদেশ আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট (বিএফআইইউ)। এদিকে জানা যায়, দেশে বর্তমানে নগদ লেনদেনের নির্দিষ্ট কোনো সীমা নেই। অনিবার্য কারণেই নীতিমালার আওতায় নগদ লেনদেন নিরুৎসাহিতের লক্ষ্যে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানভেদে প্রতিটি পর্যায়ে অর্থ লেনদেনের সীমা ঠিক করে দেয়া হবে। এতে নগদ লেনদেন কমে আসবে। অর্থাৎ ই-পেমেন্ট গুরুত্ব পেলেও অ্যাকাউন্টপেয়ি চেক, ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড ও অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরভিত্তিক যে কোনো অঙ্কের অর্থ পরিশোধভিত্তিক লেনদেন করা যাবে। ফলে কেউ অবৈধ লেনদেন করলে তা সহজে ধরা যাবে; আবার রেকর্ড সংরক্ষণের কারণে সরকারের রাজস্ব আদায়ও বাড়বে। সবচেয়ে বড় কথা, জঙ্গি অর্থায়ন নিয়ে যে দুর্ভাবনা জাতীয় পর্যায়ে রয়েছে, তা অনেকটা প্রশমিত হবে।
    লক্ষণীয়, দেশে ব্যাংকগুলোয় ই-পেমেন্টের যথেষ্ট ব্যবস্থা ও সুবিধা রয়েছে। সরকারি ব্যাংকগুলো এদিক দিয়ে বেশ খানিকটা পিছিয়ে থাকলেও বেসরকারি পর্যায়ে আশাপ্রদ উন্নতি হয়েছে। আর্থিক খাতে বর্তমানে যে ডিজিটাল ফ্যাসিলিটি চালু রয়েছে, সেটার আরেকটু উন্নতি করা গেলে এ ধরনের উদ্যোগ সহজে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। এক্ষেত্রে সরকারি ব্যাংকগুলোকে আমূল ঢেলে সাজাতে হবে। আবার এটাও দেখা যায়, ডিজিটাল লেনদেন সেবা প্রদানে ই-পেমেন্টভিত্তিক সুবিধা থাকা সত্ত্বেও এসব ব্যবস্থা সম্পর্কে ব্যাংকের গ্রাহক তথা ব্যবসায়ী, ব্যবসায়িক সংগঠন, আর্থিক লেনদেনকারী সাধারণ জনগণ এবং ক্ষেত্রবিশেষে অনেক ব্যাংকারেরও সম্যক ধারণা নেই। তাই এ ব্যাপারে ব্যাপক সচেতনতার উদ্যোগ নিতে হবে।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    চাই নিরাপদ সড়ক

    ০৯ আগস্ট ২০১৮

    বাড়ছে কিশোর অপরাধ

    ২১ জানুয়ারি ২০১৮

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
    নৌকায় ভোট দিয়ে আবারও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে — অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার
    নৌকায় ভোট দিয়ে আবারও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে — অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার