• শিরোনাম

    আনারস কেন খাবেন?

    অনলাইন প্রতিবেদক | ২৫ মে ২০২০ | ২:৩৮ অপরাহ্ণ

    আনারস কেন খাবেন?

    বাজারে গেলেই এখন ঝাকে ঝাকে আনারস চোখে পড়ে। অনেকেই এ সুস্বাদু রসালো ফলটি খেতে ভালোবাসেন। তবে আনারস শুধু যে খেতেই সুস্বাদু তা কিন্তু নয় এর রয়েছে বেশ কিছু পুষ্টিগুণ।

    এই ফলটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, হজম শক্তি বাড়ায়, প্রদাহজনিত সমস্যা দূর করে, ঠাণ্ডা লাগা এবং কাশি কমাতেও সাহায্য করে। এখানেই শেষ নয় অতিরিক্ত ওজন কমাতেও আনারসের দারুণ ভূমিকা রয়েছে। অনেকেই হয়তো আনারসের বিভিন্ন পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানেন না।

    তাহলে জেনে নিন আনারসের কিছু পুষ্টিগুণ সম্পর্কে-

    webnewsdesign.com

    সংক্রমণ দমন করে
    আনারসে রয়েছে ব্রোমেলিন এনজাইম, যা সংক্রমণ দমন করে। নিয়মিত আনারস খেলে খেলাধুলা করতে গিয়ে পাওয়া আঘাত বা ক্ষত সহজেই সেরে যায়।

    পেটের সমস্যায় মহৌষধি
    আনারস খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য, ডাইরিয়াসহ নানা ধরনের পেটের সমস্যা তো কমেই, সেইসঙ্গে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়া, উচ্চ রক্তচাপের মতো রোগের চিকিৎসাতেও আনারস ম্যাজিকের মতো কাজ করে। আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার। এটি খাবার হজম করতে এবং বর্জ্য পদার্থ শরীর থেকে বের করে দিতে সাহায্য করে।

    আনারস ক্যানসার প্রতিরোধ করে
    আনারস ক্যানসার প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণা থেকে জানা গেছে। আনারস শরীরের ইমিউন কোষগুলোকেও সক্রিয় করে তোলে৷ এই তথ্যটি প্রকাশ করেছে ক্যান্সার লেটার ম্যাগাজিন।

    সর্দি কাশিতেও দারুণ কাজ দেয়
    আনারসের মধ্যে ব্রোমেলিন নামে একটি উপাদান রয়েছে, যা বুকে সর্দি জমতে দেয় না। একইসঙ্গে সাইনাসের সমস্যাও রোধ করে।

    স্লিম হতে সাহায্য করে
    আনারসে রয়েছে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় নানা উপাদান ও আঁশ। আঁশ অনেকক্ষণ পেট ভরা রাখে এবং সহজে খিদে পায় না। অর্থাৎ কম খেলেও শরীরের প্রয়োজনীয় ভিটামিনের অভাব পূরণ করে আনারস। এর মাধ্যমে সহজেই ওজন কমানো সম্ভব। জানান জার্মান পুষ্টি বিশেষজ্ঞ ডা. বেনেডিক্ট ফিংক।

    দাঁতের যত্নে
    দাঁতের যত্নে আনারসের তুলনা হয় না। এই ফলটি মাড়ি এবং দাঁতের গোঁড়া শক্ত করতে সাহায্য করে। এছাড়া আনারস চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যা মেটাতে, মাংসপেশি শক্ত করতে, এমনকি ত্বক টানটান রাখতেও সাহায্য করে।

    চোখের উপকার
    আনারসে রয়েছে বিটা ক্যারোটিন ও ভিটামিন ‘এ’, যা দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। তাছাড়া নিয়মিত আনারস খেলে বয়স বাড়ার সাথে সাথে চোখের যেসব সমস্যা দেখা দেয়, সেসব দূরে থাকে।

    হজমশক্তি বাড়ায়, কোষ্ঠকাঠিন্য দূরে করে
    তবে কাটাকাটির ঝামেলার কারণে এই ফল যখন-তখন ইচ্ছে হলেই খাওয়া যায় না৷ তবে এতে থাকা শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন ‘এ’, ক্যালশিয়াম, পটাশিয়াম এবং ফসফরাস দেহের পুষ্টির অভাব যেমন পূরণ করে, তেমনি হজমশক্তি বাড়িয়ে কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর করে।

    মন ভালো করা ফল
    আনারসকে জার্মানরা মন ভালো করা ফলও বলে থাকে। আনারস জ্বর বা ঠান্ডাজনিত অসুখে শরীরকে তাড়াতাড়ি সুস্থ করে তুলতে সহায়তা করে।

    রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
    একটি আনারস খেলে তা আমাদের শরীরে দৈনিক ভিটামিন সি বা অ্যাসকরবিক অ্যাসিড এর চাহিদার ১৩০ শতাংশ পূরণ করতে পারে। ভিটামিন সি শ্বেত রক্ত কণিকার ক্ষমতা বাড়িয়ে নানারকম জীবাণুতো প্রতিরোধ করেই একইসঙ্গে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসাবেও কাজ করে থাকে।

    বাতের সমস্যা কমায়
    আনারস বাতের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। বাতের ব্যথায় মাংসপেশি এবং হাঁটু, কনুই এইসব অংশগুলো ফুলে যায়। আনারসের মধ্যে এক ধরনের প্রোটিওলাইটিক উৎসেচক থাকে যা ব্রোমেলিন নামে পরিচিত। এই ব্রোমেলিনই আমাদের শরীরে বাতের সমস্যা রোধ করতে সাহায্য করে।

    সাবধান
    আনারস থেকে অনেকের অ্যালার্জি হয়। বিশেষ করে ঠোঁট ফুলে যায় কিংবা গলায় বা জিভে এক ধরনের অস্বস্তি বোধ হয়। এ রকম হলে আনারস না খাওয়াই ভালো। তবে আনারস কাটার পর ভালো করে ধুয়ে নিলে এলার্জির আশঙ্কা কমে।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি
    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি