• শিরোনাম

    আতঙ্কের নাম টানা পার্টি

    | ২৮ জানুয়ারি ২০১৮ | ৭:১৮ পূর্বাহ্ণ

    আতঙ্কের নাম টানা পার্টি

    আতঙ্কের নাম টানা পার্টি

    নিজস্ব প্রতিবেদক,

    রাজধানীতে বেড়েছে টানা পার্টির দৌরাত্ম্য। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে এ পার্টির কবলে পড়ে শুধু রাজধানীতেই প্রাণ হারিয়েছেন নারী, শিশু, শিক্ষার্থী ও ব্যবসায়ীসহ কয়েকজন। আহতের তালিকায় আছেন সঙ্গীতশিল্পী, পুলিশ, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। আর ঘটনার শিকার হয়েছেন অনেকেই। ছিনতাই কাজে বেড়ে গেছে আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহারও। এসব ছিনতাইকারী চক্র ছিনতাই কাজে ব্যবহার করছে মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল। ছিনতাইকারী চক্রের টার্গেট মহিলাদের ভ্যানিটিব্যাগ, ব্যাগভর্তি টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোনসেট। সম্প্রতি কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনা আতঙ্কিত করে তুলেছে নগরবাসীকে।

    গত শুক্রবার রাজধানীতে হেলেনা নামের এক গৃহবধূকে গাড়ির চাকায় পিষে হত্যা করেছে ছিনতাইকারীরা। একই দিনে ছিনতাইকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ক্ষত-বিক্ষত হয়ে দৌড়ে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতাল পর্যন্ত গেলেও প্রাণে বাঁচতে পারেননি আরেক ব্যবসায়ী। নির্মম, নিষ্ঠুর, পৈশাচিক ঘটনা দুটি এদিন ভোরে নগরীর ধানমন্ডি ও সায়েদাবাদ এলাকায়। ছিনতাইকারীদের নির্মমতার শিকার হেলেনা বেগম ধানমন্ডির গ্রিনরোডস্থ গ্রিন লাইফ হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী। কয়েকদিনের ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন বরিশালের নিজ গ্রামে। স্বামীকে সঙ্গে করে বৃহস্পতিবার ঢাকার উদ্দেশ্যে লঞ্চে ওঠেন। শুক্রবার সকালে লঞ্চ ভেড়ে সদরঘাট। স্বামীকে নিয়ে যাত্রীবাহী বাসে চড়েন তিনি। কর্মস্থলের পাশেই নিজের বাসা। তাই নামেন ধানমণ্ডি ৭ নম্বর রোডে। ভোর সাড়ে ৫টা। রাস্তা প্রায় ফাঁকা। শীতের সকালে কিছু রিকশার টুংটাং শব্দ। স্বামীর হাতে হাতধরা হেলেনার। কাঁধে ভ্যানিটি ব্যাগ। পায়ে হেঁটে রাস্তা পেরিয়ে গ্রিনরোডে যাওয়ার প্রস্তুতি। কিন্তু কয়েক সেকেন্ডেই সব শেষ। পেছন থেকে হঠাৎই সাদা রংয়ের দ্রুতগতির প্রাইভেটকার। হেলেনার কাঁধে থাকা ভ্যানিটি ব্যাগ ধরে সজোরে টান। কিছুই বুঝতে পারেননি হেলেনা। ছিটকে পড়েন রাস্তায়। সেকেন্ডের ব্যবধানে ওই প্রাইভেটকারেরই পেছনের চাকায় পিষ্ট হন হেলেনা। কিংকর্তব্য স্বামী মনিরুল। পিচঢালা রাস্তায় গড়াচ্ছে স্ত্রীর রক্ত। মৃত্যু যন্ত্রণায় সেই রক্তের ওপর হেলেনার শরীরটা কয়েকটি ঝাঁকুনি দিয়েই নিস্তেজ। এরপর আসে পুলিশ। নেয়া হয় হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জানান, ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন হেলেনা।
    অন্যদিকে, রাজধানীর সায়েদাবাদ এলাকায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে রক্তাক্ত হন ব্যবসায়ী মো. ইব্রাহিম। তিনি খুলনার সোনাডাঙ্গা উপজেলার শেখপাড়ার মৃত বজলুর রহমানের ছেলে। ব্যবসার কাজে মঙ্গলবার খুলনা থেকে ঢাকায় আসেন। বৃহস্পতিবার রাতে নারায়ণগঞ্জ থেকে সায়েদাবাদ পৌঁছে কোথাও যাওয়ার সময় রাত সাড়ে তিনটার দিকে তিনি ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন। ছিনতাইকারীরা তার শরীরে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে। তার কাছে থাকা জিনিসপত্র নেয়ার জন্য টানাটানি শুরু হয়। একপর্যায়ে ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করে। ছুরিকাঘাতে রক্তাক্ত অবস্থায় ইব্রাহিম নিজেকে রক্ষা করতে দৌড়াতে থাকেন। দৌড়ে তিনি সালাহউদ্দিন হাসপাতালে পৌঁছেন। সেখানকার জরুরি বিভাগে তার কিছু চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেলে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। সঙ্গে কেউ না থাকায় এবং যানবাহন না পাওয়ায় তিনি অনেক সময় ওই হাসপাতালেই অপেক্ষা করছিলেন। পরে পুলিশের টহল দল এসে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
    এছাড়া একই দিনে রাজধানীর উত্তরায় এধরনের ছিনতাইয়ের শিকার হন উত্তরা উমেন মেডিকেল কলেজের এক কর্মকর্তার স্ত্রী। তার কাঁধে থাকা ব্যাগ নিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।
    জানা গেছে, এধরনের ছিনতাইয়ের শিকার অনেকেই বেশিরভাগ ছিনতাইয়ের ঘটনার বিষয়ে বাড়তি ঝামেলা এড়াতে থানায় মামলা বা জিডি না করে হাসপাতালে বা ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েই বাড়ি ফিরে যান। এ কারণে ছিনতাইয়ের সঠিক পরিসংখ্যান থাকে না থানাগুলোতে।
    এদিকে প্রায় প্রতিদিনই একাধিক ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। কিন্তু কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না বেপরোয়া ছিনতাই। অব্যাহত কয়েকটি ঘটনায় আতঙ্ক বিরাজ করছে নগরবাসীর মনে।
    এ প্রসঙ্গে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন বলেন, রাজধানীতে যত ছিনতাই হয় তার ৭০ ভাগের ব্যাপারেই থানায় কোনো অভিযোগ হয় না।
    গত ১৮ ডিসেম্বর ছিনতাইকারীর টানে রিকশা থেকে পড়ে নিহত হয় ৫ মাসের শিশু আরাফাত। যাত্রাবাড়িতে এক আত্মীয়ের বাসায় যাওয়ার সময় ভোর সাড়ে ৬টায় দয়াগঞ্জ মোড়ে পৌঁছায় আকলিমাকে বহনকারী রিকশা। এরই মধ্যে চলন্ত ট্রাক থেকে টান দেয় আকলিমার হাতে থাকা ভ্যানিটি ব্যাগ। সেটি চলে যায় ছিনতাইকারীর দখলে। এতে মায়ের কোলে থাকা আরাফাত ছিটকে পড়ে যায় রাস্তায়। দ্রুত তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জানান, পথেই মারা গেছে আরাফাত। সন্তানের মৃত্যুর খবর জেনে নির্বাক আকলিমা-আলম দম্পতি।
    গত ৪ জানুয়ারি নিজের আত্মীয়কে বাসে তুলে দিতে গিয়ে মাইক্রোবাসে ছিনতাইয়ের শিকার হন একটি জাতীয় দৈনিকের সাংবাদিক ও তার এক আত্মীয়। এদিন ভোর সাড়ে ৬টার দিকে যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে একটি প্রাইভেট কার পেছন থেকে এসে হ্যাচকা টান দিয়ে ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়। রিকশা থেকে পড়ে সামান্য আহত হন ওই সাংবাদিক। তিনি আমার সংবাদকে বলেন, একটি দামি প্রাইভেট কার পেছন থেকে এসে আমার আত্মীয়ের ব্যাগ ধরে টান দিতেই আমি রিকশা থেকে পড়ে যাই। এতে সামান্য আহত হই। কুড়িল ফ্লাইওভার এলাকায় টলহ পুলিশ থাকলেও তারা তখন ঘুমাচ্ছিলেন।
    গতবছর নভেম্বরে মতিঝিলে হাতব্যাগ ছিনিয়ে নেওয়ার সময় রিকশা থেকে পড়ে আহত হন এফবিসিসিআইর এক নারী কর্মকর্তা। গত বছরের সেপ্টম্বরে সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ডে রিকশারোহী কণ্ঠশিল্পী ও যুব মহিলালীগ নেত্রী বর্ষা চৌধুরী ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন। একটি প্রাইভেটকার থেকে মাথা বের করে ছিনতাইকারী বর্ষার ভ্যানিটি ব্যাগ টেনে নিয়ে যায়। এতে তিনি আহতও হন। থানা মামলা না নিয়ে একটি জিডি গ্রহণ করেই দায়িত্ব শেষ করেছে। ওই মাসেই হাতিরঝিলে এক পুলিশ সদস্যও ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে আহত হন। সম্প্রতি কয়েকটি ঘটনায় দেখা গেছে এখন ছিনতাই কাজে ব্যবহার হচ্ছে ল্যান্ড ক্রুজার, পাজেরো, প্রাডো, পোরশে কিংবা বিএমডাব্লিউর মতো ব্রান্ডের দামি গাড়ি। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিতে দুর্বৃত্তরা এসব গাড়ি ব্যবহার করছে। কখনো এসব গাড়ি ভাড়ায় নেয়া হয়। আবার অভিজাত শ্রেণির সন্তানরা নেশার টাকা জোগাড় করতে নিজেদের গাড়ি ব্যবহার করে। এদিকে, গত ১৮ জানুয়ারি ছিনতাইসংক্রান্ত এক সংবাদ সম্মেলনে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন বলেন, রাজধানীতে যত ছিনতাই হয় তার ৭০ ভাগের ব্যাপারেই থানায় কোনো অভিযোগ হয় না। এর প্রধান কারণ অনেক ক্ষেত্রেই থানা মামলা নিতে চায় না। আবার ভুক্তভোগীরা দু-একটি মোবাইল ও সামান্য কিছু টাকা পয়সার জন্য থানায় যেতে অনিহা প্রকাশ করেন। এদিকে সচেতন মহল বলেছেন, সব ঘটনায় অভিযোগ হয় না বলেই ছিনতাইয়ের অনেক ঘটনাই থেকে যায় আড়ালে।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ
    বোকরা নিষিদ্ধ! হাজীগঞ্জে বোরকা পরার অপরাধে আধাঁঘন্টা খাতা আটক রাখার অভিযোগ