আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরালো করার পাশাপাশি নতুন ভোটারদের টার্গেট করে দুই কোটি নতুন সদস্য সংগ্রহ করতে চায় আওয়ামী লীগ। কেন্দ্রীয় নেতারা বলেছেন, এবারের অভিযানে তাদের মূল লক্ষ্য: নতুন ভোটার এবং নারী ভোটারদের দলের সদস্য পদ দেওয়া। এরইমধ্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ সংক্রান্ত নির্দেশনা ইউনিট প্রধানদের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন।

নতুন ভোটারদের টার্গেট করে সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালনায় দলের কেন্দ্রীয় নেতারা গত ১৮ জুলাই থেকে দেশের বিভিন্ন সংগঠনিক ইউনিট সফর করছেন।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন: সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম চাঙ্গা হবে, দল গতিশীল হবে। নির্বাচনের আর বেশি দেরি নেই। এসব কার্যক্রমের ভেতর দিয়ে একদিকে সংগঠন চাঙ্গা হবে, অপরদিকে নির্বাচনের প্রস্তুতিও গ্রহণ করা সম্ভব হবে।

webnewsdesign.com

তবে, এখন পর্যন্ত ঠিক কতজন নতুন সদস্যপদ গ্রহণ করেছেন কিংবা পুরনো কতজন সদস্যপদ নবায়ন করেছেন তার সঠিক হিসাব করা হয়নি।

গত ২০ মে আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় দলের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও পুরনো সদস্যদের সদস্যপদ নবায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর কেটে গেছে পাঁচ মাস। এ সময়টাতে নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান ছিল অনেকটাই ঢিলেঢালা। অক্টোবরের শুরু পর্যন্ত ৭৮টি সাংগঠনিক ইউনিটের মধ্যে মাত্র ৩০টি সাংগঠনিক জেলা কেন্দ্র থেকে নতুন সদস্য সংগ্রহের জন্য নির্ধারিত বই সংগ্রহ করে।

তবে সদস্য সংগ্রহ অভিযানে গতি বাড়াতে সচেষ্ট হয়েছে আওয়ামী লীগ। সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এরইমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন করেছেন। কেন্দ্রীয় সূত্র জানাচ্ছে, ঢাকা বিভাগের ১৮টি ইউনিট নতুন সদস্য সংগ্রহের জন্য নিবন্ধন বই সংগ্রহ করেছে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন: অধিকাংশ সাংগঠনিক জেলায় কেন্দ্র থেকে কর্মসূচি উদ্বোধন করে দেওয়া হয়েছে। তবে আগস্ট মাসজুড়ে শোকের কর্মসূচি থাকায় সদস্য সংগ্রহ অভিযানে কিছুটা ভাটা পড়ে। রোহিঙ্গা ইস্যুটিও মানবিক। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অধিকাংশ নেতাকর্মী শেখ হাসিনার নির্দেশে সেখানে কাজ করছেন। এজন্য কিছুটা স্থিমিত আছে সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি। আশা করি দ্রুত এ কর্মসূচি গতি পাবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

গত ১৬ ও ১৮ অক্টোবর জয়পুরহাট এবং সিলেট জেলায় নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করে আওয়ামী লীগ। এছাড়া, গত ২৭ জুলাই বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলায় সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এর আগে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় নতুন সদস্য সংগ্রহ ও সদস্য পদ নবায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। গত ৩০ জুলাই নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সদস্য সংগ্রহ অভিযান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা: দীপু মনি।

আগের পাঁচ মাসের তুলনায় এখন ঢাকা অঞ্চলে নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান গতি  পেয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন: স্থানীয়ভাবে কার্যক্রম জোরালো করা হয়েছে। ঢাকা বিভাগের ১৮টি ইউনিটের মধ্যে প্রায় সবগুলোতে সদস্য সংগ্রহ সংক্রান্ত একশ পৃষ্ঠার করে বই পৌঁছে গেছে।

‘নতুন সদস্য হতে বিভিন্ন পর্যায়ের লোকজন ছুটে আসছেন। অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছি। চাহিদা বেশি থাকায় প্রাথমিকভাবে আমরা যে বই পেয়েছি, তা শেষ হয়ে গেছে। নতুন করে আবারো ছাপাতে হবে,’ বলে জানান তিনি।

২০১০ সালেও আওয়ামী লীগ একবার সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করেছিল। কিন্তু, পরে তা থেমে যায়। বাংলাদেশের প্রাচীণতম দল আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্যসহ বর্তমান সদস্য সংখ্যা প্রায় দুই কোটি। এর মধ্যে ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত সাংগঠনিক কমিটিতে আছেন সাড়ে চার লাখ।