• শিরোনাম

    চাঁদপুরে আরো ৫ জনের করোনা শনাক্ত, মোট শনাক্ত ৭৬

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৮ মে ২০২০ | ৬:০২ অপরাহ্ণ

    চাঁদপুরে আরো ৫ জনের করোনা শনাক্ত, মোট শনাক্ত ৭৬

    প্রতীকী ছবি

    চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা আরো ৫জন বেড়েছে। এদের মধ্যে স্বাস্থ্যকর্মী, জনপ্রশাসনের কর্মচারী ও উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তি রয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭৬জন। ফরিদগঞ্জে করোনার উপসর্গে মারা যাওয়া আরো একজনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। এতে মৃত বেড়ে হয়েছে ৫জন।

    সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, সোমবার মোট রিপোর্ট এসেছে ১০টি। এর মধ্যে পজেটিভ ৪টি। চাঁদপুর সদরে ২টি ও ফরিদগঞ্জে ২টি। শাহরাস্তির ১জন কুমিল্লায় শনাক্ত হয়ে নিজ এলাকায় চলে আসায় তিনিও জেলার করোনা রোগী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। সে হিসেবে সোমবার মোট করোনা আক্রান্ত রোগী বেড়েছে ৫জন।

    গত বৃহস্পতিবার ফরিদগঞ্জে উপজেলা সদরের কাচিয়ারা এলাকায় মারা যাওয়া শাহ আলম পাটওয়ারী ওরফে চাঁন মিয়ার (৬৫) নমুনা টেস্টের রিপোর্ট সোমবার পজেটিভ এসেছে। ফরিদগঞ্জের আরেকজন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টাফ (স্বাস্থ্যকর্মী) করোনা তো পজিটিভ।

    এদিকে চাঁদপুর সদরের আক্রান্ত নতুন ২জন’ই চাঁদপুর শহরের। একজন সদর ইউএনও অফিসের স্টাফ ও অন্যজন গুয়াখোলা এলাকার বাসিন্দা।

    চাঁদপুর সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, সোমবার জেলার মোট ১০জনের নমুনা টেস্টের রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে ৪জন পজেটিভ, ৬জনের রিপোর্ট করোনা নেগেটিভ। কুমিল্লায় শনাক্তকৃত একজন শাহরাস্তিতে নিজ এলাকায় চলে আসায় জেলার পরিসংখ্যানে তিনিও অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন।

    সূত্র আরো জানায়, এ নিয়ে চাঁদপুর জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৬জন। এর মধ্যে মৃত ৫জন, সুস্থ হয়েছেন ১৬জন। বাকীরা চিকিৎসাধীন। চাঁদপুরে জেলায় বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত ৭৬জনের উপজেলাভিত্তিক পরিসংখ্যান হলো : চাঁদপুর সদরে ৪১, ফরিদগঞ্জে ১০, মতলব উত্তরে ৬, হাজীগঞ্জে ৫, মতলব দক্ষিণ ৫, কচুয়ায় ৪, শাহরাস্তিতে ৩ ও হাইমচরে ২জন।

    সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত উল্লাহ সোমবার দুপুরে এক প্রেস নোটে জানান, চাঁদপুর থেকে আরো ১৮জনের নমুুনা প্রেরণ করা হয়েছে করোনা টেস্টের জন্য। এ নিয়ে মোট প্রেরণকৃত নমুনার সংখ্যা দাঁড়ালো ১১২৮। এর বিপরীতে রিপোর্ট এসেছে ৯৬৮টি। রিপোর্ট অপেক্ষমান ১৬০টি।

    তিনি জানান, চাঁদপুর জেলায় এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৬০জন। এর মধ্যে ইতিমধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৫১জন। বর্তমানে আইসোলেশনে রোগীর সংখ্যা ৯জন। জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ৩৬৬৩জন। এর মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩৫৯৯জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৬৪জন।

    উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের উপসর্গ (জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট) নিয়ে বৃহস্পতিবার (১৪ মে) সকাল ১১টার দিকে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার কাচিয়ারা এলাকার নিজ বাড়িতে তিনি মারা যান বৃদ্ধ শাহ আলম ওরফে চান মিয়া। আগের দিন বুধবার তিনি নারায়ণগঞ্জ থেকে নিজ এলাকায় এসেছিলেন। করোনার সন্দেহভাজন হিসেবে মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে সিভিল সার্জন অফিসে পাঠানো হয়েছে। তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় দাফন করা হয়েছে। সোমবার রিপোর্ট আসে তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন।

    Leave a comment

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি
    বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে চাকরি